1. ashraful.shanto@gmail.com : Ashraful Talukder : Ashraful Talukder
  2. newstalukder@gmail.com : Alamgir Talukder : Alamgir Talukder
বৃহস্পতিবার, ০৯ ডিসেম্বর ২০২১, ০১:৪৮ অপরাহ্ন
ব্রেকিং নিউজ
কচুয়ার ১২ টি ইউনিয়নে নৌকা প্রতীক পেলেন যারা কচুয়ায় উৎসবমূখর পরিবেশে ইউপি নির্বাচনের মনোনয়নপত্র সংগ্রহ ও দাখিল চেয়ারম্যান পদে ৫৮ ও মেম্বার পদে ৫শত ১৫ জনের মনোনয়নপত্র সংগ্রহ কচুয়ায় পুকুর থেকে রিক্সাচালকের ভাসমান লাশ উদ্ধার কচুয়ার কড়ইয়া ইউনিয়নের তৃনমূলের প্রার্থী নৌকার মনোনয়ন প্রত্যাশী আবদুস ছালাম সওদাগরের ব্যাপক গনসংযোগ ১৬মাস ১০ দিন পর কচুয়া উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মো: শাহজাহান পুনর্বহাল কচুয়ার নলুয়ায় ডক্টর মহীউদ্দীন খান আলমগীর এমপির বিভিন্ন উন্নয়ন কাজের উদ্বোধন কচুয়া উত্তর ইউনিয়নে ড.মহীউদ্দীন খন আলমগীর এমপি’র বিভিন্ন উন্নয়ন কাজের উদ্বোধন কচুয়ার শেখ মুজিবুর রহমান ডিগ্রি কলেজ এই অঞ্চলের শ্রেষ্ঠ বাতিঘর: ড.মহীউদ্দীন খন আলমগীর এমপি কচুয়ায় ড. মুনতাসীর মামুন ফাতেমা ট্রাস্টের অস্বচ্ছল পরিবারের মাঝে ভ্যান গাড়ি বিতরণ কচুয়ার দুর্গাপুরে ইউপি সদস্যের নির্বাচনী প্রচারনায় হামলা ॥আহত ৪
শিরোনাম
কচুয়ার ১২ টি ইউনিয়নে নৌকা প্রতীক পেলেন যারা কচুয়ায় উৎসবমূখর পরিবেশে ইউপি নির্বাচনের মনোনয়নপত্র সংগ্রহ ও দাখিল চেয়ারম্যান পদে ৫৮ ও মেম্বার পদে ৫শত ১৫ জনের মনোনয়নপত্র সংগ্রহ কচুয়ায় পুকুর থেকে রিক্সাচালকের ভাসমান লাশ উদ্ধার কচুয়ার কড়ইয়া ইউনিয়নের তৃনমূলের প্রার্থী নৌকার মনোনয়ন প্রত্যাশী আবদুস ছালাম সওদাগরের ব্যাপক গনসংযোগ ১৬মাস ১০ দিন পর কচুয়া উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মো: শাহজাহান পুনর্বহাল কচুয়ার নলুয়ায় ডক্টর মহীউদ্দীন খান আলমগীর এমপির বিভিন্ন উন্নয়ন কাজের উদ্বোধন কচুয়া উত্তর ইউনিয়নে ড.মহীউদ্দীন খন আলমগীর এমপি’র বিভিন্ন উন্নয়ন কাজের উদ্বোধন কচুয়ার শেখ মুজিবুর রহমান ডিগ্রি কলেজ এই অঞ্চলের শ্রেষ্ঠ বাতিঘর: ড.মহীউদ্দীন খন আলমগীর এমপি কচুয়ায় ড. মুনতাসীর মামুন ফাতেমা ট্রাস্টের অস্বচ্ছল পরিবারের মাঝে ভ্যান গাড়ি বিতরণ কচুয়ার দুর্গাপুরে ইউপি সদস্যের নির্বাচনী প্রচারনায় হামলা ॥আহত ৪

নয়া নগরপিতাদের প্রতিশ্রুতি বাস্তবায়নের পালা

  • আপডেট : বৃহস্পতিবার, ৩০ এপ্রিল, ২০১৫
  • ৪০০ বার পড়া হয়েছে

রসধমবং (১)মেহেরুন ময়না : দীর্ঘ ১৩ বছর পর গত মঙ্গলবার দুই সিটি করপোরেশন নির্বাচনে ক্ষমতায় এসেছেন নতুন দুই মেয়র। ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের মেয়র হিসেবে জয়ী হয়েছেন সাঈদ খোকন। আর উত্তর সিটি করপোরেশনে বিজয়ী হয়েছেন ব্যবসায়ী নেতা আনিসুল হক।  বিজয়ী হওয়ার পর তাদের মুখে যেমন হাসি ফুটেছে ঠিক সেই হাসি জনগণের মুখে ফোটানোর দায়িত্ব এখন এ দুই নগরপিতার।

প্রায় ২ কোটি মানুষের বসবাস করে রাজধানী ঢাকাতে। কিন্তু এই ঢাকা বর্তমানে এক অসুস্থ নগরীতে পরিণত হয়েছে। রয়েছে নানা সমস্যায় জর্জরিত। জনবহুল এ নগরটির সেবার মান বৃদ্ধি করতে ২০১১ সালের ২৯ নভেম্বর দুই সিটি করপোরেশনকে বিভক্ত করা হয়েছে। কিন্তু দীর্ঘদিন ধরে নির্বাচিত প্রতিনিধি না থাকায় সমস্যার পাল্লা দিনদিন ভারী হয়েছে। নগরবাসী সিটি করপোরেশনকে বিভক্ত করার কোনো সুফল পায়নি। তাই দীর্ঘ ১৩ বছর দুই সিটি করপোরেশনের নগরপিতাকে পেয়ে নগরবাসী নগর উন্নয়নের স্বপ্ন দেখছে। আর সেই স্বপ্ন নগর পিতারাই দেখিয়েছেন। এখন শুধু দুই নগরপিতার স্বপ্ন বাস্তবায়নের পালা।

ঢাকা উত্তর ও দক্ষিণ সিটি করপোরেশন নির্বাচনে মেয়র প্রার্থীদের ইশতেহারের প্রধান প্রতিশ্রুতিগুলো ছিলÑ নগর সেবাদানকারী প্রতিষ্ঠানগুলোর মধ্যে সমন্বয়, আর্থিক সঙ্কট-দুর্নীতি-বেদখল সম্পত্তি উদ্ধার, কমন ইউটিলিটি টানেল নির্মাণ, যানজট নিরসন, রিকশা নিয়ন্ত্রণ, রাস্তায় ময়লার কনটেইনার-ভৌত অবকাঠামো ঠিক করা, খেলার মাঠ ও পার্কের উন্নয়ন-দখলমুক্ত করা এবং নগরবাসীকে মশা আর মাদকের অভিশাপ থেকে মুক্তি।

রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞরা বলছেনÑ দুই সিটি করপোরেশনের সরকার সমর্থিত নতুন মেয়র আনিসুল হক ও সাঈদ খোকনের ক্ষেত্রে প্রতিশ্রুতিগুলো বাস্তবায়ন  অনেকটা সহজ হবে। কারণ সরকার দলীয় হওয়ায় সরকারের সঙ্গে তাদের সক্ষতাও থাকবে। তবে বিষয়গুলো তারা সহজে মোকাবিলা করতে পারলেও নির্ভর করবে অন্যসব দপ্তরগুলোর সহনশীলতার ওপর।

এ বিষয়ে সুশাসনের জন্য নাগরিক (সুজন)-এর সভাপতি বদিউল আলম মজুমদার আশা প্রকাশ করে বলেনÑ যদিও বিতর্কিত নির্বাচন কিন্তু কয়েকজন ভালো মেয়র নির্বাচিত হয়েছেন। তারা সিটি করপোরেশনের উন্নয়নের দিকে মনযোগী হবেন।

তিনি বলেনÑ আমরা আশা করব তারা সিটি করপোরেশনের উন্নয়নের দিকে নজর দেবেন, দুর্নীতি মুক্ত রাখতে কাজ করবেন। সিটি করপোরেশনকে দলীয় লোকদের প্রতিষ্ঠানে নয়, জনগণের প্রতিষ্ঠানে পরিণত করবেন।

ঢাকা সিটি করপোরেশনের (দক্ষিণ) প্রধাণ নির্বাহী কর্মকর্তা মো. আনসার আলি খান বলেনÑ দুই সিটি করপোরেশনের দুই নয়া নগরপিতাই সরকার দলীয় লোক। তাদের পারসোনাল একটা ক্ষমতা আছে। সেই ক্ষমতার বলে তারা অনেক প্রতিশ্রুতিই পূরণ করতে পারবে।

এদিকে দীর্ঘদিন রাজধানীবাসী তার নগরপিতা অভাব হারে হারে বুঝতে পেরেছে। তাই প্রথম থেকে ইশতেহারের থাকা প্রতিশ্রুতি কতটা পূরণ হবে তা নিয়ে ব্যস্ত নগরবাসী। আর নগরবাসীর এই চাওয়া-পাওয়ার হিসাব মিলাতে পারলেই তারা হবেন যোগ্য নগরপিতা এমনই গুনজন চলছে পাড়া মহলার

ওলিতে গলিতে।images-14

সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরো সংবাদ পড়ুন
© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত
প্রযুক্তি সহায়তায় মাল্টিকেয়ার